জুন ১৩, ২০২৪

আমাদের সম্পর্কে আরো জানুনঃ

আজ ই-ক্যাব নির্বাচন, হারানো গৌরব ফেরাতে চান প্রার্থীরা

উন্নয়ন ডেস্ক –

ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব)-এর কার্যনির্বাহী পরিষদ ২০২২-২৪-এর নির্বাচন শনিবার (১৮ জুন) অনুষ্ঠিত হচ্ছে। দুই বছরের জন্য ই-কমার্স খাতের নেতৃত্ব দিতে অগ্রগামী, দ্য চেঞ্জ মেকারস ও ঐক্য নামে তিনটি প্যানেলে ২৭ জনসহ মোট ৩১ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ৩১ জন প্রার্থীর মধ্য থেকে ৯ জন পরিচালক নির্বাচনের জন্য সকাল ১০ থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে ৭৯৫ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

গত ২৮ মার্চ নির্বাচনের তফসিল ঘোষিত হয়। মোট ৩৬ প্রার্থী নির্বাচনে মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করলেও ৫ জন প্রার্থী তাদের মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন। ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠিত এই সংগঠনের মোট সদস্য ১৭শ জন। দেশের বিভিন্ন জেলায়ও এই বাণিজ্য সংগঠন এর সদস্য রয়েছে। ২০১৪ সালে প্রতিষ্ঠিত হলেও প্রতি ২ বছর পর পর এর নির্বাহী পরিষদের সদস্যরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে আসছিলেন এবারই প্রথম প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনায় সুন্দর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন সংশ্লিষ্টরা।

নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছেন নির্বাচন বোর্ড চেয়ারম্যান ও এফবিসিসিআই এর সহ-সভাপতি জনাব আমিন হেলালী। সদস্য হিসেবে রয়েছেন জনাব আব্দুর রাজ্জাক ও বজলুর রহমান। আপিল বোর্ডে রয়েছেন সাবেক শিক্ষা ও আইসিটি সচিব জনাব নজরুল ইসলাম খান, সদস্য জনাব দেলোয়ার হোসেন খান রাজিব ও হারুনুর রশিদ।

নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যান আমিন হেলালী বলেন, ই-ক্যাবের নির্বাচন অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে এবং সুন্দর, সুষ্ঠু ও প্রতিযোগিতামূলক, অবাদ, নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানে আমরা বদ্ধ পরিকর। সকলের সহযোগিতা পেলে একটি দৃষ্টান্তমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠান সম্ভব এবং ভোটাররা বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশে তাদের অধিকার প্রয়োগ করার সুযোগ পাবেন।

নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দর করতে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি ও অন্যান্য ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। অভিজ্ঞ ও পর্যাপ্ত সংখ্যক নির্বাচন কর্মকর্তারা ভোট গ্রহণ করবেন। তাদের সহযোগিতার জন্য থাকবে নির্বাচন সহকারী ও স্বেচ্ছাসেবক। সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে ৪০ জনের বেশী পর্যবেক্ষককে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে, পুলিশ সদস্য ছাড়াও নিরাপত্তার জন্য নিরাপত্তারক্ষী নিয়োগ করা হবে। একটি দৃষ্টান্তমূলক নির্বাচন দেখার জন্য ভোটাররা অপেক্ষা করছেন।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Reddit