জুলাই ১৮, ২০২৪

আমাদের সম্পর্কে আরো জানুনঃ

জনগণ ডাইরেক্ট অ্যাকশন দেখতে চায়

স্টাফ রির্পোটার: গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে জনগণ এখন ডাইরেক্ট অ্যাকশন দেখতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে স্বেচ্ছাসেবক দল আয়োজিত এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে তিনি এ মন্তব্য করেন।

‘শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে কুৎসা রটনামূলক নাটক নির্মাণের প্রতিবাদে’ এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, গণতন্ত্র যেখানে অনুপস্থিতি যৌনতন্ত্র সেখানে প্রসার লাভ করছে, বিবেচিত হচ্ছে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। বাংলাদেশে সব খানে ঘটনা হচ্ছে, সরকারি অফিস-আদালত-স্কুল-কলেজ-মসজিদ-মাদ্রাসা এমন কোনো স্থান নাই, পবিত্র স্থান নাই যেখানে নারীর সম্ভ্রমহানি হয় নাই। তাই বলতে চাই, আজকে জনগণ আর মানববন্ধন দেখতে চায় না, দেখতে চায় প্রাণবন্ধন, আজকে জনগণ মুখে স্লোগান শুনতে চায় না, অ্যাকশন দেখতে চায়। আজকে আমাদেরকে এই অগণতান্ত্রিক শক্তির বিরুদ্ধে গণতান্ত্রিক শক্তিকে ডাইরেক্ট অ্যাকশনের মধ্য দিয়েই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে হবে।

তিনি বলেন, জনগণ দেখতে চায় আমরা কী করছি। আমাদের কথা বলার চেয়ে দায়িত্ব হলো কিছু করা। মানুষ এখন মুক্তি চায়, মানুষ এখন শেখ হাসিনার পদত্যাগ চায়। এরশাদের বিরুদ্ধে যেমন আন্দোলনে-মিছিলে একটি বাক্য ছিলো এক দফা এক দাবি এরশাদ তুই কবে যাবি, জনগণের দাবি এক, এরশাদের পদত্যাগ।

“সেই প্রতিবাদের স্লোগান আজকে হতে হবে- জনগণের যে দাবি হাসিনা তুই কবে যাবি। জনগণের দাবি এক শেখ হাসিনার পদত্যাগ। শেখ হাসিনাকে যদি পদত্যাগ করাতে পারেন তাহলে প্রতিদিন এমন এমন ঘটনা ঘটবে না, আর প্রতি ঘটনাই আমাদের ক্ষুব্ধ হতে হবে না, আর আমাদেরকে রোদ্রের মধ্যে কষ্ট স্বীকার করে রাস্তায় প্রতিবাদ করতে আসতে হবে না।”

আয়োজক সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েলের পরিচালনায় মানববন্ধনে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, স্বেচ্ছাসেবক সম্পাদক মীর সরফত আলী সপু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Reddit