জুলাই ১৭, ২০২৪

আমাদের সম্পর্কে আরো জানুনঃ

পানির চাপে ভেঙে গেছে ফরিদপুরের শহর রক্ষা বাধ

উন্নয়ন ডেস্ক –

পানির চাপে ভেঙে গেছে শহরতলীর আলিয়াবাদ ইউনিয়নের শহর বন্যা প্রতিরক্ষা বাধ।
ফরিদপুরের পদ্মার পানি বিপৎসীমার ১০৪ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানির চাপে ভেঙে গেছে শহরতলীর আলিয়াবাদ ইউনিয়নের শহর বন্যা প্রতিরক্ষা বাধ।

বাধটি শহরতলীর সাদিপুর-বায়তুল আমান সংযোগ সড়ক হিসেবে ব্যবহার করা হত। বাধ ভেঙে যাওয়া নতুন করে পানি প্রবেশ করছে অন্তত পাঁচটি গ্রামে।

আজ রবিবার সকাল ৭ টার দিকে হঠাৎ করে বাধটি ভেঙ্গে যাওয়ায় আশে পাশের কয়েক গ্রামের মানুষ বেড়িবাঁধের রাস্তার উঁচু জায়গায় খোলা আকাশের নিচে আশ্রয় নিয়েছে।

এদিকে ফাটল দেখা দেয়ায় ফরিদপুর চরভদ্রাসন আঞ্চলিক সড়কে যান চলাচল সাময়িক বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এই সড়কের বেশ কয়েকটি স্থান পদ্মার পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। ফাটলের স্থানে জিও ব্যাগ ফেলে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

আলীয়াবাদ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আখতারুজ্জামান জানান, হঠাৎ করে শহররক্ষা বাধটি ভেঙ্গে যায়। বাধের পাশে ৫টি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। অনেকেই বাড়ির প্রয়োজনীয় মালামাল নিয়ে রাস্তায় উঠেছে। হঠাৎ বাধ ভেঙে পানির চাপে বাধের পাশের বেশ কয়েকটি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার জানান, শহররক্ষা বাধে পাশে পানি চাপ কমে গেলে বাধটি মেরামত করা হবে। আর এখন যারা খোলা আকাশের নিচে যারা রয়েছে তাদের শুকনো খাবারসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র দেওয়া হচ্ছে।

জেলা প্রশাসক আরও জানান, এখন পর্যন্ত জেলার ৩০টি ইউনিয়নে ২২ হাজার পরিবার এখন পানিবন্দি হয়ে রয়েছে। তাদের জন্য সরকারি খাদ্য সহায়তা বিতরণ করা হচ্ছে। এছাড়াও জেলা সদর থেকে চরভদ্রাসন ও সদরপুর উপজেলার প্রধান সড়কটি চলাচলের উপযোগী করতে সড়ক বিভাগকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। যদিও ওই সড়কে বেশ কিছু স্থান পানিতে নিমজ্জিত।

ফরিদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ জানান, বর্তমানে পদ্মার পানি গোয়ালন্দ পয়েন্টে ৯.৬৯ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। যা বিপৎসীমার ১০৪ সেন্টিমিটার ওপরে। এর ফলে প্রতিদিনই নতুন নতুন এলাকায় পানি প্রবেশ করেছে। তীব্র ভাঙন দেখা দিয়েছে মধুমতির নদীর আলফাডাঙ্গা ও মধুখালী উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়ন।

তিনি জানান, শহর বন্যা প্রতিরক্ষা বাধের আলিয়াবাদে প্রায় ১০০ ফিটের মত জায়গা ধসে গেছে। রবিবার সকাল ৭ টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। সেখানে বালুর বস্তাসহ কিভাবে বাধ রক্ষা করা যায় সেই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Reddit